করোনায় প্রতিষ্ঠান বন্ধ, কিন্তু সকল কর্মীকে নিয়মিত বেতন দিচ্ছেন নেইমার

করোনায় দিশেহারা পুরো বিশ্ব। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ বর্তমানে হানা দিয়েছে বিশ্বের দেশগুলোতে। এদিকে করোনার আঘাতে জর্জরিত দেশগুলোর তালিকায় ওপরের দিকে রয়েছে ব্রাজিল। ব্রাজিলের এই দুর্দিনে প্রথম থেকেই পাশে দাঁড়িয়েছেন দেশটির মহাতারকা নেইমার।

সুবিধাবঞ্চিত তিন হাজার শিশুর দেখভালের জন্য তিনি যে প্রতিষ্ঠানটি দিয়েছিলেন, তা গত বছরের মার্চ থেকে বন্ধ রয়েছে। কিন্তু সেখানে যারা কাজ করতেন তাদের কেউ এই দুর্দিনে চাকরি হারাননি। ছাঁটাই না করে কর্মীদের পুরো বেতন দিয়ে দারুণ দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন ব্রাজিলিয়ান এই ফরোয়ার্ড।

নেইমারের বাবা জানান, ‘আমার পরিবার ও আমি প্রতিষ্ঠানটির দেখভাল করছি। যে ১৪২ জন কর্মী আছে, তারা সম্পূর্ণ বেতনসহ অন্যান্য ভাতাও পুরোপুরি পাচ্ছে। অতিমারি যতদিনই চলুক না কেন, যারা আমাদের প্রতিষ্ঠানে কাজ করে তাদের চাকরি ও ভাতার নিশ্চয়তা দিচ্ছি আমরা।’ সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জন্য ব্রাজিলের প্রেইয়া গ্রান্দে অঞ্চলে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে নেইমার জুনিয়র ইনস্টিটিউট। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে তারা কার্যক্রম চালিয়ে যেতে পারেনি। ধারণা করা হচ্ছে, কর্মীদের বেতন দিতে প্রতি মাসে প্রায় ৯০ হাজার ইউরো করে খরচ হচ্ছে। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ প্রায় ৯১ লাখ ৩৯ হাজার টাকা।

Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *